কীভাবে হাঁটলে কিছুদিনের মধ্যেই কমবে ওজন?

আমাদের মাধে এমন অনেকেই আছে যারা কিনা ওজন কমাতে প্রতিদিন হাঁটেন বা দৌড়ান। কিন্তু এতো পরিশ্রম করার পরে ও ফল ভালো মিলে না কেনো অনেকেরই মনে প্রশ্ন থাকে।

জিম ইনস্ট্রাকটারদের মতে, হাঁটতে হবে কিন্তু নিয়ম মেনে হাঁটতে হবে। কিন্তু কি সেই নিয়ম তা অনেকেই জানে না। কিভাবে হাঁটতে হবে বা কত স্পিডে হাঁটতে হবে তা ও অনেকেই জানে না।

তাই আপনাদের জন্য এই আর্টিকেলের মাধ্যমে কিভাবে হাঁটলে ওজন কমবে এই নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক কিভাবে হাটলে কিছুদিনের মাঝেই ওজুন কমবে।
কীভাবে হাঁটলে কিছুদিনের মধ্যেই কমবে ওজন?
কীভাবে হাঁটলে কিছুদিনের মধ্যেই কমবে ওজন?

কীভাবে হাঁটলে কিছুদিনের মধ্যেই কমবে ওজন, জানুন

১ঃ জিম ইনস্ট্রাকটারদের মতে, প্রতিদিন ২০ থকে ৩০ মিনিট হাঁটা জরুরি। কিন্তু আপনি যদি এই সময়ের থেকেও কম হাঁটতে চান তাহলে ১০ মিনিট পর্যন্ত স্পিড ওয়াক থাকা খুব প্রয়োজন। আপনি যদি প্রতিদিন সঠিক নিয়মে হাঁটেন তাহলে আপনার শরীর থেকে প্রতিদিন ৫০০ ক্যালোরি বার্ন হবে। আর যদি আপনি বিরতি না নিয়ে ঘন্টায় ৪ থকে ৫ কিলোমিটার হাঁটেন তাহলে আপনার শরীরের মেদ কমে যাবে।

২ঃ এবার আসি রানের প্রসঙ্গে। শরীরের মেদ কমানোর জন্য আপনাকে প্রতিদিন ১০ কিলোমিটার দৌড়াতে হবে। আপনি চাইলেই ধীর গতিতে দৌড়াতে পারেন।

৩ঃ আপনি চাইলেই আবার লং রানও করতে পারবেন। কিন্তু একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে, আপনি লং রান বা স্লো রান যাই করেন না কেনো তা কিন্তু নিয়মিত মেনে চলতে হবে।

৪ঃ আপনি প্রতিদিন ০.৫ মাইল দৌড়ানোর পর জগিং করবেন। প্রতিদিন ৪০০ থকে ৫০০ মিটার জগিং করতে হবে।

প্রতিদিন হাঁটলে না দৌড়ালে আপনার ওজন কমবে এবং আপনার হার্ট সুস্থ থাকবে। আপনি যদি প্রতিদিন ৫ থেকে ১০ মিনিট হাঁটেন তাহলে আপনার হার্টের সমস্যা ৪৫% ঝুঁকি কমে যাবে।

আপনাদের মাঝে যদি কারোর ব্লাড সুগার বেশি থাকে তাহলে আপনি প্রতিদিন হাঁটবেন বা দৌড়াবেন।

অনেক সময় চিকিৎসকরা বলে থাকেন বয়স্কদের হাঁটা বা দৌড়ানো উচিৎ। তারা যদি প্রতিদিন ঠিক মতো হাঁটে বা দৌড়ায় তাহলে তাদের পরে যাওয়ার সম্ভবনা কম থাকে। কারণ প্রতিদিন হাঁটলে পায়ের পেশি শক্ত হয় এবং হাঁটুর ব্যথা কমে যায়।

আবার কাবার হজমের জন্য কাবার খাওয়ার পর হাত দুই পাশে সোজা রেখে হাঁটার পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা। মনে রাখবেন খাওয়ার পর হাটার সময় দুই হাত দুলিয়ে দুলিয়ে হাঁটবেন।
পরবর্তী পোস্ট পূর্ববর্তী পোস্ট
কোন মন্তব্য নেই
মন্তব্য করুন
comment url